স্ত্রীর ধর্ষণের অভিযোগ করতে গিয়ে পুলিশের হাতে মার খেল স্বামী।

ফের বিতর্কের কেন্দ্রে পুলিশ। লোকটিই নিজের স্ত্রীকে খুন করে মিথ্যা গল্প সাজাচ্ছেন বলে অভিযোগ করে পুলিশ। জোর করে সেই কথা লোকটিকে দিয়ে বলানোর জন্য তাঁকে পুলিশ বেধড়ক মারধর করে।

তাঁর স্ত্রীকে অপহরণ করে ধর্ষণ করা হয়েছে। পুলিশের কাছে এই অভিযোগ জানাতে গিয়ে বেধড়ক মার খেতে হল এক ব্যক্তিকে। তিনি মিথ্যে অভিযোগ জানাচ্ছেন বলে অভিযোগ করে পুলিশ থার্ড ডিগ্রি প্রয়োগ করে তাঁর হাতের দুটি আঙুল মটকে ভেঙে দিয়েছে বলে অভিযোগ।

ঘটনাটি বিছওয়ান থানার। থানায় লোকটি জানান, স্ত্রীকে নিয়ে বাইকে চড়ে মইনপুরীর দিকে যাচ্ছিলেন তিনি। তখনই একটি গাড়ি নিয়ে তাঁর বাইকের সামনে এসে দাঁড়ায় ৩ জন। তারা লোকটির স্ত্রীকে অপহরণ করে ধর্ষণ করে বলে অভিযোগ। লোকটিকেও বেধড়ক পিটিয়ে অজ্ঞান করে দেওয়া হয়। মহিলাটিকে ধর্ষণের পর কয়েক কিমি দূরে ফেলে যাওয়া হয় বলে অভিযোগ। লোকটি জানান, তিনি জ্ঞান ফেরার পর পুলিশকে ১০০ ডায়ালে ফোন করে সাহায্য চান।

তবে তাঁকে তাজ্জব করে দিয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে তাঁর উপরই দোষারোপ করতে থাকে বলে অভিযোগ। এ দিকে, ধর্ষকদের কবল থেকে পালিয়ে মহিলাটি কোনওক্রমে থানায় পৌঁছে গোটা ঘটনা খুলে বলেন পুলিশকে। তবে ততক্ষণে পুলিশের মারে আশংকাজনক অবস্থায় হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে তাঁর স্বামীকে। এই ঘটনায় চরম অস্বস্তিতে পড়েছেন পুলিশের শীর্ষ কর্মকর্তারা তবে এখনও পর্যন্ত অভিযুক্ত পুলিশকর্মীদের বিরুদ্ধে কোনও ব্যবস্থা নেওয়া হয়নি।

Share On
No Content Available