জমিজমা সংক্রান্ত বিরোধের জের ধরে উথলীতে দু’পক্ষের রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষ, আহত-৪

The World BD

The World BD

চুয়াডাংগা প্রতিনিধি :
জমিজমা সংক্রান্ত বিরোধের জের ধরে চুয়াডাঙ্গার জীবননগর উপজেলার উথলী বাজারে দু’পক্ষের মধ্যে রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষ হয়েছে। মহিলাসহ উভয় পক্ষের আহত হয়েছেন বেশ কয়েকজন। রবিবার (২৬ জুলাই) সন্ধ্যার সময় উথলী বাজার এলাকায়  এই ঘটনা ঘটে। এ সংক্রান্তে দু’পক্ষই জীবননগর থানায় লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছেন।
 
ঘটনার বিবরণ সূত্রে জানা যায়, উথলী বাজার পাড়ার কালু মণ্ডলের ছেলে উথলী ইউনিয়ন যুবলীগের সিনিয়র সহ-সভাপতি ঝনু মিয়ার বড়ভাই মিন্টু মিয়া, মৃত আকবার আলীর ছেলে ১নং ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সাধারণ-সম্পাদক আতিকুর রহমানের ছোটভাই তরিকুলের দখলে থাকা রেলওয়ের একখন্ড ভিটে জমি ক্রয় করে। জমি ক্রয়ের পর তরিকুলের কাছ থেকে মিন্টু মিয়া  একটি স্ট্যাম্পে লিখিত নেন ওই জমি থেকে কি কি নেওয়া যাবে। কিন্তু তরিকুল  সকল শর্ত অমান্য করে জোর করে ওই জমি থেকে নিয়মবহির্ভূতভাবে সমস্ত মালামাল নিয়ে যেতে চাইলে মিন্টু তাতে বাধা দেওয়াতে তাকে সাপল দিয়ে আঘাতের চেষ্টা করে তরিকুল। পরবর্তীতে সেখানে উপস্থিত হয় আতিকুর রহমান এবং ঝনু মিয়া। এতে দুপক্ষের মধ্যে শুরু হয় সংঘর্ষ। উভয় পক্ষের মহিলাসহ বেশ কয়েকজন আহত হয়। থানায় দায়ের করা হয় পাল্টাপাল্টি অভিযোগ। কিন্তু আতিকুর রহমানের ভাই তরিকুলের দায়েরকৃত অভিযোগটি মামলা হিসাবে এজাহারভুক্ত হলেও মিন্টু মিয়ার বৌয়ের অভিযোগটি মামলার এজাহারভুক্ত করা হয়না। মামলার এজাহারভুক্ত আসামি হওয়ায় গ্রেফতার করা হয় ঝনু মিয়াকে। রবিবার ঝনু মিয়া জামিনে বের হয়ে এসে বাজারে অবস্থিত আতিকুরের দোকানে যেয়ে জমি নেবনা মর্মে টাকা ফেরত চাই। আতিকুর টাকা ফেরত না দিতে চাইলে ঝনু মিয়া বাড়িতে চলে আসে। টাকা ফেরত না দিয়ে পরবর্তীতে আতিকুর রহমান লাঠিসোটাসহ লোকজন নিয়ে ঝনু মিয়ার বাড়িতে যেয়ে ঝনু মিয়ার বাড়ি এবং বাড়ির সাথে থাকা তার দোকানটি ব্যাপক ভাংচুর করে। তাদের হামলায় রক্তাক্ত জখম হয় ঝনু মিয়া, ঝনু মিয়ার স্ত্রী কোহেলী খাতুন এবং মিন্টু মিয়ার শাশুড়ি ছফুরা খাতুন। হামলার কথা শুনে জীবননগর থানা পুলিশের একটি টিম দ্রুত ঘটনাস্থলে আসেন।
মারাত্মক আহত অবস্থায় ঝনু মিয়ার স্ত্রী কোহেলী খাতুন এবং মিন্টু মিয়ার শাশুড়ি ছফুরা খাতুনকে স্থানীয়রা উদ্ধার করে জীবননগর উপজেলা স্বাস্থ্যকমপ্লেক্সে ভর্তি করে। তারাই দুজনেই।হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন। প্রাথমিক চিকিৎসা নিয়ে ঝনু মিয়া বাড়িতে চলে আসেন।                  
তবে হামলার বিষয় অস্বীকার করে আতিকুর রহমান জানান, তারাই আমাদের উপর হামলা করে বেশ কয়েকজনকে আহত করে। আমি এ বিষয়ে জীবননগর থানায় লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছি। 
এ ব্যাপারে জীবননগর থানার ওসি সাইফুল ইসলাম জানান, উভয়পক্ষই থানায় অভিযোগ দায়ের করেছে। তদন্ত সাপেক্ষে প্রকৃত দোষীদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।  
তবে দুপক্ষের মধ্যে উত্তেজনা বিরাজ করছে। যেকোন সময় বড়ধরনের দুর্ঘটনা ঘটতে পারে।

Discussion about this post

Archive Calendar

সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র শনি রবি
 
১০১১১২১৩১৪১৫১৬
১৭১৮১৯২০২১২২২৩
২৪২৫২৬২৭২৮২৯৩০
৩১