বার্সা পিএসজির দেওয়া ক্ষতে মলমটাও লাগাতে পারল না

চ্যাম্পিয়নস লিগে বার্সেলোনার আশা যে শেষ, তা মোটামুটি নিশ্চিত। অঙ্কের হিসাবে এখনো শেষ ষোলো থেকে পরের রাউন্ডে যাওয়ার সম্ভাবনা বার্সেলোনার আছে বটে। কিন্তু শেষ ষোলোর প্রথম লেগে কিলিয়ান এমবাপ্পের চোখধাঁধানো হ্যাটট্রিকে বার্সার মাঠে এসে যেভাবে বার্সাকে ৪-১ গোলে হারিয়ে গেছে পিএসজি, এরপর এই ভঙ্গুর বার্সার পক্ষে সেই ব্যবধান ঘোচানো সম্ভব বলে হয়তো বার্সার পাঁড় সমর্থকও বিশ্বাস করেন না।

গত মঙ্গলবার পিএসজির আর এমবাপ্পের দেওয়া সেই ক্ষতের পর আজ লিগে কাদিজের বিপক্ষে তেঁড়েফুঁড়ে খেলবেন মেসিরা, পিএসজির ঝাল বার্সা মেটাবে পুঁচকে কাদিজের ওপর—এমনটাই ভাবছিলেন হয়তো অনেকে। কিন্তু কোথায় কী!

লিগের পয়েন্ট তালিকায় ১৪তম কাদিজের বিপক্ষে অনেক সুযোগ পেয়েও গোল করতে না পারার মূল্য দিলেন মেসি-গ্রিজমানরা। দুই পেনাল্টির ম্যাচে শেষ মুহূর্তে গোল করে বার্সার মাঠ থেকে ১-১ গোলের ড্র নিয়ে ফিরেছে কাদিজ। বার্সার আর পিএসজির দেওয়া ক্ষতে মলম লাগানো হলো না। ৩২ মিনিটে পেনাল্টি থেকে লিওনেল মেসির গোলে এগিয়ে যায় বার্সা, কিন্তু ৮৯ মিনিটে পেনাল্টি থেকে আলেক্স ফার্নান্দেজের গোলে সমতায় ফেরে কাদিজ।l

কাদিজকে পুঁচকে বলা অবশ্য ঠিক হচ্ছে কি না, তা নিয়ে প্রশ্ন উঠতে পারে। অন্তত লিগে এবার বার্সার বিপক্ষে তাদের পারফরম্যান্স তো কাদিজকে বার্সার চেয়েও এগিয়ে রাখে। ধারে-ভারে তো বার্সার আশপাশেও নেই, কিন্তু লিগে এবার দুই দলের মুখোমুখি দুই ম্যাচের একটিতেও বার্সা জিততে পারেনি। কাদিজের মাঠে প্রথম দেখায় ৩-১ গোলে বার্সাকে উড়িয়ে দিয়েছিল কাদিজ! আর আজ হলো ড্র।

মঙ্গলবার পিএসজির দেওয়া ক্ষত যাতে খেলোয়াড়েরা ভুলতে পারেন, সে জন্যই সম্ভবত পিএসজি ম্যাচে যে ১১ জন শুরুতে খেলেছিলেন, সেই ১১ জনকেই আজও শুরু থেকেই খেলিয়েছেন বার্সা কোচ রোনাল্ড কোমান। কিন্তু পিএসজি নামের ক্ষতে উল্টো লবণ হয়ে এল কাদিজ। বার্সার দাপট প্রত্যাশিত ছিল, বার্সা দাপট দেখিয়েছে বটে ম্যাচজুড়ে। বলের দখল ৮১ শতাংশ, শট নিয়েছে ২০টি। উল্টো দিকে কাদিজের শট মাত্র ৩টি। কিন্তু কাজের কাজটা না করতে পারলে মূল্য তো দিতেই হবে! একটু আহ, একটু উহ-তেই ৯০ মিনিটে কেটেছে বার্সা সমর্থকদের।

১৭ মিনিটে প্রথম বার্সা সমর্থকদের আসন ছেড়ে উঠে দাঁড়ানোর জোগাড়। ২৫ গজ দূর থেকে লেফটব্যাক জর্দি আলবার শট কাদিজের বারের পাশ দিয়ে যায়। ছয় মিনিট পর আঁতোয়ান গ্রিজমানের শট আটকে দেন কাদিজ ডিফেন্ডার। এর ছয় মিনিট পর আফসোস মেসিকে ঘিরে। ২৫ গজ দূর থেকে মেসির বাঁকানো শট জালে ঢুকবে ঢুকবে, এমন অবস্থায় ঝাঁপিয়ে পড়ে সেটি ফিরিয়ে দেন কাদিজ গোলকিপার লেদেসমা। ম্যাচজুড়ে দারুণ খেলেছেন কাদিজ গোলকিপার।

পেনাল্টি থেকে মেসি এগিয়ে দেন বার্সাকে।
পেনাল্টি থেকে মেসি এগিয়ে দেন বার্সাকে। 

তবে তিন মিনিট পর তাঁরও কিছু করার ছিল না। বার্সা মিডফিল্ডার পেদ্রিকে বক্সে কাদিজ ডিফেন্ডার ফেলে দিলে পেনাল্টি পায় বার্সা, দারুণ দক্ষতায় সেটি থেকে গোল করেন মেসি। শরীরের বাঁকে গোলকিপারকে ঘোল খাইয়েছেন, এরপর গোলকিপার যেদিকে লাফিয়েছেন, তার উল্টো দিক দিয়ে বলটাকে যেন পাস দিয়ে জালে পাঠিয়েছেন। কাদিজ অবশ্য সঙ্গে সঙ্গেই প্রায় জবাব দিয়ে ফেলেছিল! কিন্তু কাদিজ স্ট্রাইকার সোবরিনোর শট পোস্ট ঘেঁষে বেরিয়ে যায়।বিজ্ঞাপন

বিরতির পর ফিরেও একই গল্প। বার্সার দাপট, গোলের কাছে যাওয়া, কিন্তু গোল পাওয়া হয়নি। ৬২ মিনিটে গ্রিজমানের শট ঠেকিয়ে দেন লেদেসমা, ৪ মিনিট পর দেম্বেলের শট যায় বার ঘেঁষে। ৭৩ মিনিটে মেসি ভলি রাখতে পারলেন না পোস্টে। সাত মিনিট পর আবার মেসির হতাশা, আবারও ২৫ গজ দূর থেকে তাঁর বাঁকানো শট পোস্টে বাতাস লাগিয়ে যায়। এরপর ৮৫ মিনিটে রিকি পুচ দারুণ সুযোগ কাজে লাগাতে ব্যর্থ।

কাদিজের গোলও পেনাল্টি থেকে, ৮৯ মিনিটে।
কাদিজের গোলও পেনাল্টি থেকে, ৮৯ মিনিটে। 

ব্যর্থতাগুলোই বার্সার দুঃস্বপ্ন হয়ে পরে ফিরে এসেছে। কাদিজ স্ট্রাইকার সোবরিনোকে বক্সে ফাউল করেন ক্লেমঁ লংলে। সেটিতে পাওয়া পেনাল্টি থেকে বলটাকে দারুণভাবে জালে জড়ান ফার্নান্দেজ। বার্সা গোলকিপার টের স্টেগেনকে কোনো সুযোগই দেননি।

আগের দিন লিগ শীর্ষে থাকা আতলেতিকো মাদ্রিদ হেরে যাওয়ায় বার্সার সামনে আতলেতিকোর আরও কাছাকাছি যাওয়ার, শিরোপার লড়াইয়ে ফেরার সুযোগ এসেছিল। এই ড্রতে সেই সুযোগ হারালেন মেসিরা।

২৩ ম্যাচে ৪৭ পয়েন্ট নিয়ে ৩ নম্বরে আছে বার্সা। চারে থাকা সেভিয়া (২২ ম্যাচে ৪৫ পয়েন্ট) নিজেদের হাতে থাকা ম্যাচটি জিতলে বার্সাকে টপকে যাবে। শীর্ষে থাকা আতলেতিকোর পয়েন্ট ২৩ ম্যাচে ৫৫। দুইয়ে রিয়াল মাদ্রিদ, তাদের পয়েন্ট ২৪ ম্যাচে ৫২।

Share your love