ভারতের দিল্লিতে গণমাধ্যমের কার্যালয়ে তল্লাশি

ভারতে চলমান কৃষক আন্দোলন নিয়ে খবর প্রকাশ করে সরকারের তোপের মুখে পড়েছে ‘নিউজক্লিক’ নামের একটি গণমাধ্যম। আন্দোলন নিয়ে লাগাতার নিরপেক্ষভাবে সংবাদ পরিবেশন করায় গত মঙ্গল ও বুধবার দিল্লিতে গণমাধ্যমটির কার্যালয়ে তল্লাশি চালানো হয়েছে।

ভারতের ‘এনফোর্সমেন্ট ডাইরেক্টরেট’ এই অভিযান চালায়। সরকারের এমন পদক্ষেপের নিন্দা জানিয়েছে সাংবাদিকদের অধিকার ও গণমাধ্যমের স্বাধীনতা নিয়ে কাজ করা আন্তর্জাতিক অলাভজনক সংগঠন কমিটি টু প্রটেক্ট জার্নালিস্টস (সিপিজে)।

গত দুই দিনে দক্ষিণ দিল্লিতে নিউজক্লিকের দপ্তরে তল্লাশি ছাড়াও এর প্রধান সম্পাদক প্রবীর পুরকায়স্থের বাড়িতে তল্লাশি চালানো হয়। ভারতের গণমাধ্যমের খবরে বলা হয়েছে, নিউজক্লিকের টাকাপয়সা কোথা থেকে আসে, তার খোঁজখবর করতেই এই তল্লাশি চালানো হয়েছিল। বিষয়টি নিয়ে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে সরব হয়েছেন একাধিক সাংবাদিক, সমাজকর্মী।

এ নিয়ে সিপিজের এশিয়াবিষয়ক প্রধান গবেষক আলিয়া ইফতিখার বলেন, নিউজক্লিকের দপ্তরে এবং প্রবীর পুরকায়স্থের বাড়িতে তল্লাশি করা হয়েছে মূলত ভয় দেখানোর জন্য। সরকারের কাজকর্মের সমালোচনা করে এমন সংবাদমাধ্যমের ওপর এই ঘটনার সাংঘাতিক প্রভাব পড়বে।

নিউজক্লিকের কর্মীদের কাজ ও সাহসের প্রশংসা করেছেন অনেক সাংবাদিক ও সম্পাদক। এগুলো মূলত প্রকাশিত হয়েছে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে। তবে ভারতের সংবাদমাধ্যমের ওপরে লাগাতার হস্তক্ষেপকে মূলস্রোতের সংবাদমাধ্যম এখনো বড় ইস্যু করে তোলেনি। বিশিষ্ট সাংবাদিক পি সাইনাথ বলেছেন, ‘ভারতের ইতিহাসের একটা গুরুত্বপূর্ণ অধ্যায়ের মধ্য দিয়ে আমরা চলেছি। নিউজক্লিক সেই ইতিহাসকে লিপিবদ্ধ করছে, ইতিহাসকে তার চেহারাও দিচ্ছে। আরও গুরুত্বপূর্ণ ব্যাপার হলো, ইতিহাসের সঠিক দিকে এই মুহূর্তে রয়েছে নিউজক্লিক। তিনি বলেন, ভারতে এখন একটা প্রাতিষ্ঠানিক জরুরি অবস্থা চলছে, এমনটা বলা যেতে পারে। প্রবীর পুরকায়স্থ ১৯৭৫ সালের জরুরি অবস্থার সময় জেলে ছিলেন, তাই তিনি ভালোভাবে জানেন ভারতে এখন কী ঘটছে।

আপনাদের বিপদে ফেলা হচ্ছে কারণ আপনারা অবিশ্বাস্য সাংবাদিকতা করছেন। বিশেষত, যেভাবে আপনারা কৃষক আন্দোলনকে কভার করছেন, তা মানুষ কখনোই ভুলবে না।

পি সাইনাথ

সংবাদমাধ্যমে আরও অনেকেই নিউজক্লিকের পাশে দাঁড়ালেও এরা প্রায় সবাই বাম মনোভাবাপন্ন বা সরাসরি বামপন্থী। নিউজক্লিকের পক্ষ থেকে একটি বিবৃতিতে বলা হয়েছে ‘আসল ঘটনা কী, তা অবশ্যই সামনে আসবে। বিচারব্যবস্থার প্রতি আমাদের পূর্ণ আস্থা রয়েছে।’ পশ্চিমবঙ্গের বেশ কিছু সাংবাদিক ও গণমাধ্যম সাইট এই ঘটনার নিন্দা করেছে।

Share your love