যুক্তরাজ‌্য থেকে সিলেটে আসা আরও ২০৭ জন কোয়ারেন্টিনে

করোনাভাইরাসের নতুন ধরন (স্ট্রেইন) সংক্রমণের কারণে যুক্তরাজ্য থেকে সিলেটে আসা আরও ২০৭ জনকে বাধ্যতামূলক কোয়ারেন্টিনে পাঠানো হয়েছে। তাঁদের নতুন নিয়মে সাত দিন বাধ্যতামূলক কোয়ারেন্টিনে রাখা হবে। পরে তাঁদের করোনার নমুনা সংগ্রহ করে পরীক্ষার পর ফল নেগেটিভ এলে নিজ বাড়িতে পাঠানো হবে। আর ফল পজিটিভ এলে সরকার–নির্ধারিত আইসোলেশন সেন্টারে তাঁদের ভর্তি করা হবে।

যুক্তরাজ্যের হিথরো বিমানবন্দর থেকে সোমবার দুপুরে একটি ফ্লাইটে তাঁরা সিলেটের ওসমানী আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে পৌঁছান।

গত ১ জানুয়ারি থেকে যুক্তরাজ্যফেরত ব্যক্তিদের নিজ খরচে ১৪ দিনের বাধ্যতামূলক কোয়ারেন্টিনে রাখার নির্দেশনা দেওয়া হয়। পরে ১৩ জানুয়ারি স্বাস্থ্য অধিদপ্তর থেকে যুক্তরাজ্যফেরত যাত্রীদের নতুন নিয়মে সাত‌ দিন বাধ্যতামূলক কোয়ারেন্টিনে রাখার কথা বলা হয়।

ওসমানী আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর ও পু‌লিশ সূত্রে জানা যায়, দুপুর সোয়া ১২টার দিকে যুক্তরাজ্য থেকে বাংলাদেশ বিমানের একটি ফ্লাইটে ২০৭ জন যাত্রী সিলেটের ওসমানী আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে না‌মেন। পরে ওই ফ্লাইট‌ ওসমানী আন্তর্জাতিক বিমানন্দর থেকে ঢাকার হজরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরের উদ্দেশে ছেড়ে যায়।

ওসমানী আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরের ব্যবস্থাপক হাফিজ আহমদ বলেন, যুক্তরাজ্যফেরত যাত্রীদের নতুন নিয়মে কোয়ারেন্টিন নিশ্চিত করতে বেলা একটার দিকে প্রশাসনের ব্যবস্থাপনায় নির্ধারিত হোটেলগুলোতে নিয়ে যাওয়া হয়েছে। সেখানে নতুন নির্দেশনা মোতাবেক বাধ্যতামূলক কোয়ারেন্টিন শেষে করোনা পরীক্ষার পর ‘নেগেটিভ’ ফল এলে তাঁদের নিজ বাড়িতে কোয়ারেন্টিনের জন্য পাঠানো হবে।

Share your love