চুয়াডাঙ্গা জেলায় করোনার ভয়ঙ্কর থাবা প্রতিদিনই বাড়ছে নতুন আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা ও মৃতের সংখ্যা

চুয়াডাঙ্গা জেলায় করোনা পরিস্থিতি মারাত্মক রূপ ধারণ করেছে। প্রতিদিনই বাড়ছে নতুন আক্রান্ত রোগী ও মৃতের সংখ্যা। গত দু’দিনে ২৭ জন করোনায় আক্রান্ত রোগী সনাক্ত হয়েছে।
এর মধ্যে করোনায় আক্রান্ত হয়ে গত বুধবার(১৫ জুলাই) রাতে মৃত্যুবরণ করেছেন জেলা আওয়ামীলীগের প্রচার সম্পাদক ফেরদৌস ওয়ারা সুন্না। পরেরদিনই বৃহস্পতিবার রাতে করোনা উপসর্গ নিয়ে মৃত্যুবরণ করলেন জেলা দোকান মালিক সমিতির সভাপতি আসাদুল হোসেন জোয়ার্দ্দার লেমন। বেশ কিছুদিন ধরেই তিনি সর্দি, কাশিতে ভুগছিলেন। বৃহস্পতিবারে তার শ্বাসকষ্ট বৃদ্ধি পাই। শুক্রবার সকালে নামাজে জানাজা শেষে তাকে পারিবারিক কবরস্থানে দাফন করা হয়। একইরাতে করোনায় আক্রান্ত হয়ে মৃত্যুবরণ করেছেন চুয়াডাঙ্গা সদর হাসপাতালের প্রাক্তন সার্জারী কনসালটেন্ট এবং বর্তমান কুষ্টিয়া মেডিকেল কলেজের সার্জারী বিভাগের সহকারী অধ্যাপক ডা. এএসএম নূরউদ্দিন রুমী।
তবে চুয়াডাঙ্গা জেলায় করোনা পরিস্থিতি মারাত্মক আকার ধারণ করলেও সচেতনতা নাই সাধারণ মানুষজনের মধ্যে। তেমনভাবে কেউই মুখে মাস্ক ব্যবহার করছেন না। মানছেন না সামাজিক দূরত্ব, অমান্য করছেন সরকারি নিষেধাজ্ঞা। যানবাহন নিয়ম নীতি না মেনে অবাধে চলাচলের কারণে বাড়ছে  আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা। জেলার মানুষকে করোনার ভয়ঙ্কর থাবা থেকে রক্ষা করতে কঠোর লকডাউনের কোন বিকল্প নাই বলে মনে করছেন সচেতনমহল।
জেলাটিতে এ পর্যন্ত মোট ৩৫০ জন করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত রোগী সনাক্ত হয়েছে। মৃত্যুবরণ করেছেন ৪ জন। সুস্থ হয়েছেন ২১৩ জন। এই জেলায় প্রথম করোনায আক্রান্ত রোগী সনাক্ত হয় ১৯শে মার্চ।
Share your love