চুয়াডাঙ্গা জেলার দামুড়হুদার বিষ্ণুপুর গ্রামে ৬বছরের শিশুকে ধর্ষনের অভিযোগ

মো: তারিকুর রহমান চুয়াডাঙ্গা প্রতিনিধি: চুয়াডাঙ্গা দামুড়হুদার বিষ্ণুপুরে ৬ বছরের শিশুকে ধর্ষনের অভিযোগ উঠেছে। এ ঘটনায় নিশান(১৫) নামের কিশোরকে আটক করেছে পুলিশ। শিশুটি বর্তমানে চুয়াডাঙ্গা সদর হাসপাতালে চিকিৎসাধীন আছে।জানা গেছে  সোমবার বেলা ৩টার সময় বিষ্ণুপুর বাজার পাড়ার কালামের ছোট মেয়ে বিষ্ণুপুর সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ২য় শ্রেণীর ছাত্রী জান্নাতুল নিজ বাড়ির পাশের বাগানে খেলা করছিল। এমন সময় পাখিপাড়ার বেল্টু রহমানের ছোট ছেলে বিষ্ণুপুর মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের ঝরেপড়া ছাত্র অভিযুক্ত নিশান(১৫)। বনভোজন করার কথা বলে ডাক দেয়। জান্নাতুল যেতে না চাইলে মুখ চেপে ধরে নিজ চাচা মন্টুর পাকা পায়খানার ভিতর নিয়ে যায়। দরজা লাগিয়ে জোর পূর্বক মুখ ও গলা চেপে ধরে শিশু জান্নাতুলকে ধর্ষণ করে। জান্নাতুল ছাড়া পেয়ে রক্ত মাখা অবস্থায় বাড়ি ফেরার চেষ্টা করে। এ সময় প্রতিবেশীরা ও জান্নাতুলের বোন দেখতে পেয়ে বাবা কালামকে ডাকে। তারপর জিজ্ঞেস করলে জান্নাতুল সব বলে দেয়। কালাম প্রতিবেশীর সাহায্য নিয়ে বিষ্ণুপুর পুলিশ ফাড়িতে ফোন করে। খবর পেয়ে বিষ্ণুপুর পুলিশ ফাড়ির ইনচার্জ মনিরুল ইসলামের সহযোগিতায় দামুড়হুদা মডেল থানা পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌছায়। শিশু জান্নাতুলকে রক্তমাখা অবস্থায় উদ্ধার করে চুয়াডাঙ্গা সদর হাসপাতালে পাঠায়। অন্য দিকে নিশানকে আটক করে দামুড়হুদা মডেল থানায় নিয়ে যান।এ বিষয়ে জান্নাতুলের পরিবারের বক্তব্য, নিশানের বাবা মা এসে বলে টাকা নিয়ে চাপা দিয়ে দাও। আমরা রাজি হ‌ইনি বলে নিশানের বাবা মা আমাদের মারধর করতে আসে। নিশানের বাবা ও ভাই হুমকি দিয়ে বলে পুলিশকে ফোন করেছিস ভাল কথা। এই ঘটনায় যদি তোরা কোন রকম মামলা করতে যাস তবে তোদের খুন করে ফেলব।অভিযুক্ত নিশানের পরিবারের বক্তব্য নিতে গেলে দেখা যায় সবাই বাড়ি ছেড়ে পালিয়েছে।এ বিষয়ে ইউপি সদস্য আইনুদ্দীন ও এলাকাবাসী বলে দেশের এমন কঠিন সময়ে এই ঘটনায় অভিযুক্ত নিশানের উপযুক্ত শাস্তি হওয়া উচিত। যেন এমন ন্যাক্কার জনক ঘটনা কেউ ঘটাতে সাহস না পায়। দৃষ্টান্ত মূলক শাস্তি দাবী জানিয়েছেন এলাকাবাসী ও সচেতন মহল।দামুড়হুদা মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ আব্দুল খালেক ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন মামলা মামলার প্রস্তুতি চলছে।

Share your love