কমিউনিটি পুলিশ’র নামকরণ ‘কমিউনিটি সিকিউরিটি’ করা হউক – মোঃ জামাল উদ্দিন

মোঃ জামাল উদ্দিন : বাংলাদেশ পুলিশ এখন বদলে যাওয়া একটি নাম, একটি মানবিক প্রতিষ্ঠান। আমরা আমাদের পুলিশ ডিপার্টমেন্ট নিয়ে এখন গর্ব করি। সমগ্র দেশের সকল পুলিশের পাশাপাশি কক্সবাজার জেলার মাননীয় পুলিশ সুপার, অতিরিক্ত পুলিশ সুপারসহ জেলার সকল থানার সম্মানীত পুলিশ সদস্যদের বর্তমান ভূমিকা-ই আমাদের বাধ্য করেছে তাঁদের নিয়ে গর্ব করতে। তাই পুলিশ শব্দটির সম্মানার্থে কমিউনিটি পুলিশের নাম পরিবর্তন করে কমিউনিটি সিকিউরিটি করা হউক। কেবল পুলিশ-ই পারবেন তাঁদের নামের সম্মান রক্ষা করতে, অন্যকেউ নয়। চোর, ডাকাত এবং মাদক কারবারী দিয়ে কখনোই সমাজ রক্ষা করা যায়না, পরিবর্তন করা যায়না।

আজ উখিয়া উপজেলার জালিয়াপালং ইউনিয়নের কমিউনিটি পুলিশের সেক্রেটারী মুসা মেম্বারের বাড়ি থেকে ১০ হাজার ইয়াবা উদ্ধারের ঘটনায় এটি আবারও প্রমাণিত হল যে, নামের আগেপরে যতই উপাধী দিকনা কেন, চোর কখনো সাধু হয়না। বরং ছদ্মবেশে সেই নামের অপমান অার অপব্যবহার করাই তাদের মূখ্য উদ্দ্যেশ্য। সাধারন পাবলিক কি আর বুঝে, পুলিশ কি আর কমিউনিটি পুলিশ কি?

তাই, যথাযথ কর্তৃপক্ষের দৃষ্টি আকর্ষন করছি, পুলিশ শব্দটির অপমান এবং অপব্যবহারকারীদের দ্রুত শাস্তির আওতায় এনে অন্যকোন প্রতিষ্ঠানের আগেপরে শব্দটির ব্যবহারে নিষেধাজ্ঞা আনয়নের বিষয়টি বিবেচনা করা হউক। মনে রাখতে হবে, পুলিশ-ই কেবল পুলিশ।

আমাদের পুলিশ ডিপার্টমেন্টের সুনাম রক্ষা করা হউক।

লেখক : বিশেষ প্রতিবেদক, ডিবিডিনিউজ২৪.কম ও ব্যাংকার।

Share your love