টাঙ্গাইলে কালিহাতীতে ধর্ষন ও হত্যার দায়ে নারীসহ ২ জনের যাবজ্জীবন কারাদন্ড

টাঙ্গাইল সংবাদদাতা :
টাঙ্গাইলে কালিহাতীতে ধর্ষন ও হত্যার দায়ে নারীসহ ২ জনের যাবজ্জীবন
কারাদন্ড ও এক লাখ জরিমানার রায় দিয়েছে আদালত। আজ বৃহস্পতিবার দুপুরে
টাঙ্গাইলের নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনালের বিচারক বেগম খালেদা
ইয়াসমিন এ রায় ঘোষণা করেন। দন্ডিতরা হলেন, কালিহাতী উপজেলার আওলাতৈল
গ্রামের মৃত রহিজ উদ্দিনের ছেলে নুর মোহাম্মদ নুরু (৬৫) ও বাসাইল উপজেলার যশিহাটী গ্রামের নাজির হোসেনের স্ত্রী মোছাঃ নাজমা আক্তার (৩২)।

নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনালের বিশেষ পিপি নাছিমুল আক্তার
জানান, কালিহাতী উপজেলার খৈনারঘোনা গ্রামের মো. আব্দুল আলীমের মেয়ে আশা
আক্তার (৮) তার নানার বাড়ী শহরের এনায়েতপুরে থাকতেন। একপর্যায়ে গত ২০১৬
সালের অক্টোবর মাসের ১৮ তারিখে সে নিখোঁজ হয়। এর দুই দিন পর কালিহাতী
থানা পুলিশ বিল থেকে অজ্ঞাত এক শিশুর লাশ উদ্ধার করে। খবর পেয়ে আশার বাবা
আব্দুল আলীম লাশটি তার মেয়ের বলে সনাক্ত করে। ওই দিনই আব্দুল আলীম বাদী
হয়ে কালিহাতী থানায় মামলা দায়ের করে। পরে পুলিশ এ ঘটনার প্রধান আসামী
নাজমা আক্তারকে শহরের বটতলা থেকে গ্রেফতার করেন। তার স্বীকারোক্তি
অনুযায়ী অপর আসামী নুরু মোহাম্মদ নুরু কে গ্রেফতার করে আদালতে পাঠায়। পরে
তারা দু’জনেই আশাকে ধর্ষন ও হত্যার সাথে জড়িত বলে আদালতে
স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দী দেয়। এসময় মামলার প্রধান আসামী নাজমা আক্তার
বলেন, ২০১৬ সালের অক্টোবরের ১৮ তারিখে আশাকে নিয়ে তারা কালিহাতী উপজেলার
ধানগড়া গ্রামের মান্দাই বিলে  যায়। এ সময় নুর মোহাম্মদ আশাকে দুইবার
ধর্ষন করে পানিতে চুবিয়ে হত্যা করে।

Share your love