জাতির ক্লান্তিলগ্নে জাতির বিপদে কেউ এগিয়ে আসলেন না – হাবিব উন নবী খান সোহেল

একাত্তর সালে শহীদ রাষ্ট্রপতি জিয়াউর রহমানের বয়স ছিলো মাত্র পয়ত্রিশ। হ্যাঁ উনি সামান্যই একজন মেজর ছিলেন। সামরিক বাহিনীতে মেজর খুব একটা বড় পদ নই। আরো তো অনেক বড় বড় অফিসার ছিলেন, আরো তো অনেক বড় বড় নামকরা ঝানু পলিটিশিয়ান ছিলেন। কই জাতির ক্লান্তিলগ্নে জাতির বিপদে কেউ এগিয়ে আসলেন না? সেই পয়ত্রিশ বছরের অখ্যাত মেজর দেশের জন্য জাতির জন্য যা করলেন যারা তাকে অখ্যাত মেজর বলেন তাদের বলি আপনাদের গায়ের চামড়া কেটে শহীদ রাষ্ট্রপতি জিয়াউর রহমানের মাজার মুড়িয়ে দেওয়া হয় তাও তার প্রতি কৃতজ্ঞতা তার ঋণ আপনারা শোধ করতে পারবেন না। ভাইয়েরা আমার উনি যখন দেশের প্রেসিডেন্ট ছিলেন তখন উনার বয়স ছিলো মাত্র একচল্লিশ। পৃথিবীর বিভিন্ন রাষ্ট্রনায়করা এসেছেন চলে গেছেন তাদের অটোবায়োগ্রাফি গুলো বের হয়েছে। যদি সেগুলো বিশ্লেষণ করেন দেখবেন শহীদ রাষ্ট্রপতি জিয়াউর রহমানের মাত্র একচল্লিশ বছর বয়সে তিন বছর সময় নিয়ে উনার নিজ দেশের জন্য যা করেছেন একটি বোটমলেস বাসকেটেট দেশকে উনি বিশ্বের সেই উন্নত দেশগুলোর ঠিক কাতারে না যেতে পারলেও কাছাকাছি নিয়ে গিয়েছিলেন মাত্র তিনবছর সময়ে। কিভাবে এটা সম্ভব? যদি কেউ প্রশ্ন করে উত্তর একটাই ” you are a Definitely a super genius”

Share On
No Content Available