অবশেষে আগস্টেই খুলছে মালয়েশিয়ার শ্রমবাজার

নিজস্ব প্রতিবেদক

অবশেষে আগামী আগস্ট থেকেই বাংলাদেশি শ্রমিকদের জন্য মালয়েশিয়ার শ্রমবাজার চালু হচ্ছে। শনিবার (২০ জুলাই) গণমাধ্যকর্মীদের এসব তথ্য জানিয়েছেন প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান প্রতিমন্ত্রী ইমরান আহমদ।

মন্ত্রী বলেন, ‘মালয়েশিয়ায় শ্রমবাজার চালু করতে প্রাথমিক ধাপের সব কাজ শেষ হয়েছে। আশা করছি, আগামী আগস্ট থেকে মালয়েশিয়ায় স্থগিত হওয়া শ্রমবাজার নতুন করে চালু হবে।’

এর আগে পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এ কে আব্দুল মোমেন রাষ্ট্রীয় অতিথি ভবন পদ্মায় গত ৭ জুলাই রাতে ঢাকা সফররত মালয়েশিয়ার পররাষ্ট্রমন্ত্রী সাইফুদ্দিন বিন আব্দুল্লাহ’র সঙ্গে দ্বিপক্ষীয় বৈঠক করেন। বৈঠক শেষে গণমাধ্যমকর্মীদের ওইদিন একই তথ্য জানান পররাষ্ট্রমন্ত্রী। সে সময় মালয়েশিয়ার পররাষ্ট্রমন্ত্রী সাইফুদ্দিন বিন আব্দুল্লাহও উপস্থিত ছিলেন।

আব্দুল মোমেন বলেন, ‘সৌহাদ্যপূর্ণ পরিবেশে বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়েছে। আমাদের শ্রমশক্তির ওপর তাদের আস্থা রয়েছে। তাদের নতুন সরকার গঠিত হয়েছে। ফলে এই খাতটি তারা নুতন করে সাজাচ্ছে। আশা করছি, আগামী আগস্টের মধ্যে মালয়েশিয়ার দুয়ার খুলবে।’

মালয়েশিয়ার পররাষ্ট্রমন্ত্রী সাইফুদ্দিন বিন আব্দুল্লাহ বলেন, ‘বাংলাদেশি জনশক্তি এক অর্থে মালয়েশিয়াকে শক্তিশালী হতে সহায়তা করছে। আমাদের নতুন সরকার জনশক্তি খাতের কর্মীদের যথাযথ বেতনসহ আনুসঙ্গিত নিশ্চিতে কাজ করছে। বিষয়টি আমাদের মানবসম্পদ মন্ত্রী দেখছেন। খুব শিগগিরই এই বিষয়ের সমস্যা কেটে যাবে।’

জানা গেছে, সরকারিভাবে (জি টু জি পদ্ধতি) কর্মী পাঠানোর প্রক্রিয়ায় বাংলাদেশের ১০ প্রতিষ্ঠান দুর্নীতি করায় মালয়েশিয়ার শ্রমবাজারে কর্মী নিয়োগ গত সেপ্টেম্বর থেকে স্থগিত রয়েছে।

এর আগে, গত ১১ মে মালয়েশিয়ায় ছয় দিনের সফর করেন তৎকালিন প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান প্রতিমন্ত্রী ইমরান আহমদ। স্থগিত হওয়া শ্রম বাজার উন্মুক্ত করতে এবং ওই দেশের সরকারের সঙ্গে দরকষাকষি করতে প্রতিমন্ত্রী ইমরান আহমদ গত ১৪ মে মালয়েশিয়ার মানবসম্পদমন্ত্রী কুলাসেগারন এবং স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী হাজী মুহিউদ্দিন বিন হাজি মোহা ইয়াসিনের সঙ্গে বৈঠক করেন।

প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান মন্ত্রণালয় থেকে জানা গেছে, বিগত ১৯৭৬ সাল থেকে চলতি বছর পর্যন্ত মালয়েশিয়ার শ্রম বাজারে মোট ১০ লাখ ৫৬ হাজার ৫৬৬ বাংলাদেশি শ্রমিক কাজ করতে যান। যা বৈদেশিক শ্রম বাজারের ৮ দশমিক ৫৫ শতাংশ।

অন্যদিকে, চলতি বছরের ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত ২০৩ দশমিক ৩২ মিলিয়ন মার্কিন ডলারের সমপরিমাণ মুদ্রার রেমিটেন্স মালয়েশিয়া থেকে পাওয়া গেছে।

দ্য ওয়ার্ল্ডবিডি/ঢাকা/এফওয়াই

Share On