কক্সবাজারে দূর্নীতিবাজদের বিরুদ্ধে কক্সবাজার জেলা ছাত্রলীগের নেতা মঈন উদ্দিনের স্ট্যাটাস ভাইরাল।

মইন উদ্দীন, এই কক্সবাজারে রাতের আঁধারে যা হচ্ছে সব কি নেত্রীর কানে পৌঁছেছে…?দেশরত্ন শেখ হাসিনা কক্সবাজারে হাজার হাজার কোটি টাকার উন্নয়ন কার্যক্রম করছেন। এই উন্নয়ন প্রকল্প বাস্তবায়নে দরকার জমি। সেই জমি অধিগ্রহন করতে ৪-৫ হাজার কোটি টাকা নেত্রী কক্সবাজারের মানুষের জন্যে বরাদ্দ রেখেছেন। সেই টাকা ভুক্তভোগীদের নিকট হস্তান্তর হতে হাজার কোটি টাকার দূর্নীতি হচ্ছে। এখানে কমিশন বাণিজ্য ওপেন সিক্রেট। তবে রাতের আঁধারে কার কতো পার্সেন্ট সেই ধরকষাকষি হয়। 
আমার বাড়ির দেয়াল ঘেঁষেই কক্সবাজার বিমান বন্দরের সীমানা প্রাচীর। জমি অধিগ্রহনের ৫শ কোটি টাকা আমার এলাকার মানুষের জন্যে বরাদ্দ আছে। এরমধ্যে একশো কোটি টাকা মতো হস্তান্তর হয়েছে যার মধ্যে অর্ধকোটি খেয়ে ফেলেছে দূর্নীতিবাজ প্রশাসনিক কর্মকর্তা আর দালালেরা।
হয়তো অনেকেরই মনে আছে মাতারবাড়ী কয়লা বিদ্যুৎ প্রকল্পের ভূমি অধিগ্রহণের ক্ষতিপূরণের দূর্নীতি নিয়ে প্রথম প্রতিবাদ আমার ছিলো। জেলা প্রশাসক সমন জারি করেছিলো এর জবাব দিয়েছি নিখুঁতভাবে । গোয়েন্দা সংস্থা ডকুমেন্ট চেয়েছিলো সব তাদের হাতে দিয়েছিলাম। 
কতো রকম কাহিনী, কতো কিছুর স্বাক্ষী ছিলাম…!!আমাকে ডেকে নিয়ে বলা হলো ‘ক্যারিয়ার’ খেয়ে দিবে। কতো দম্ভুক্তি কতো ভয় দেখালো।পরেতো সেই জেলা প্রশাসক জেলের ভাত খেলো। কতো সিনিয়র অফিসার এখন রাস্তায় রাস্তায়। যারা আমাকে নিয়ে খেলেছিলো তারাই নিয়েছে সেই ক্রেডিট। যাই হোক বহুদিন ধরে চুপ। আগের মতো লিখিনা। কেমন জানি হয়ে গেছি। স্বপ্নটা স্বপ্নই থেকে গেলো স্বপ্ন ভাঙ্গার ভয়ে দেখে যাচ্ছি তাদের লীলাখেলা…!!

Share On