হোয়াইক্যং নয়া বাজার মাস্টার ফরিদের ভাই বাবুলের গুলিবিদ্ধ লাশ উদ্ধার।


বিশেষ প্রতিবেদক : কক্সবাজার শহরের কবিতা চত্বর এলাকা থেকে মো. আলম বাবুল (৪২) নামে এক মাদক কারবারীর গুলিবিদ্ধ লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। এসময় ঘটনাস্থল হতে দেশীয় তৈরী আগ্নেয়াস্ত্র ও ইয়াবা উদ্ধার করা হয়েছে।
কক্সবাজার সদর থানার ওসি অপারেশন মাসুম খান জানান, আজ রোববার ভোরে দুই মাদক কারবারীদলের মধ্যে গোলাগুলির খবর পেয়ে পুলিশ শহরের কবিতা চত্বর এলাকায় গেলে মাদক কারবারীরা পালিয়ে যায়। এসময় পুলিশ তল্লাশী চালিয়ে গুলিবিদ্ধ এক মরদেহ একটি দেশীয় তৈরী অস্ত্র, ৩ রাউন্ড কার্টুজ ও ২শ পিচ ইয়াবা উদ্ধার করে। পরে তার পরিচয় শনাক্তের পর জানা যায়, তার নাম মো. আলম ওরফে বাবুল মিয়া। সে টেকনাফ উপজেলার হোয়াইক্যং ইউনিয়নের সাতঘরিয়া পাড়া এলাকার মিয়া আহমদের পুত্র। পুলিশ জানান তার বিরুদ্ধে টেকনাফসহ কক্সবাজারের বিভিন্ন থানায় অস্ত্র ও ইয়াবা কারবারের ৯টি মামলা রয়েছে। অপর ৩ ভাইসহ বাবুল মাদক সিন্ডিকেট পরিচালনা করে আসছিল।এর মেজ ভাই বহু মামার আসামী জাফর আলম অস্ত্র ও মাদক নিয়ে গ্রেফতার হয়ে বর্তমানে কারাগারে আছে। তার আরেক ভাই বদি আলম বদি আলম মাদক নিয়ে গ্রেফতার হয়ে, জেলে থেকে জামিনে বের হয়ে বাবুলের মাদকের চালান ঢাকা ভিত্তিক চাপলাইয়ের দায়িত্বে নিয়োজিত আছে। তার বড় ভাই ফরিদুল আলম এলাকায় ক্ষমতা দেখিয়ে নিজেদের পারিবারিক ব্যবসা অব্যহত রেখেছে দাপটের সাথে। আইন শৃংখলা বাহিনীর এত অভজানের মাঝে ও তাদের পারিবারিক ব্যবসা বন্ধ হয়নি। এলাকা বাসির দাবী বাবুলদের পারিবারিক ব্যবসা বন্ধ করতে হলে তার বড় ভাই ফরিদুল আলম সহ অন্য তিন ভাইকে আইনের আওতায় আনা জরুরি।পুলিশ তার লাশ উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য মর্গে প্রেরণ করেছে।

Share On