কাউন্সিলর প্রার্থীদের সরব উপস্থিতিতে উৎসবমুখর নগর বিএনপির কার্যালয়

আব্দুল করিম, চট্রগ্রাম মহানগর প্রতিনিধি : চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনে দলীয় সমর্থন পেতে বিএনপি নেতারা নিজ নিজ এলাকার কর্মী বাহিনী নিয়ে উৎসবমুখর পরিবেশে নগরীর নুর আহমদ সড়কস্থ দলীয় কার্যালয় নাসিমন ভবনে মনোনয়ন বোর্ডের কাছে সাক্ষাৎকার দিচ্ছেন।
শনিবার (২২ ফেব্রুয়ারি) পূর্ব ঘোষিত সময় সকাল ১০ টা থেকে শুরু হয়েছে সাক্ষাৎকার। বিকেলে সাক্ষাৎকার শেষে মনোনয়ন বোর্ড তালিকা তৈরি করে স্থায়ী কমিটির কাছে পাঠাবে। তারপর সেটি মেয়রসহ একসাথে অথবা আগে মেয়র তারপর কাউন্সিলর পদে দলীয় প্রার্থী ঘোষণা করবে বলে জানান বিএনপি নেতারা।দুপুর সাড়ে ১২টায় দেখা যায়, ১০ নম্বর উত্তর কাট্টলী ওয়ার্ডের বাসিন্দা মেজবাহ উদ্দিন চৌধুরী, ৪০ নম্বর উত্তর পতেঙ্গা ওয়ার্ডের মোহাম্মদ জাহিদ, ৭ নম্বর পশ্চিম ষোলশহর ওয়ার্ডের সেলিম উদ্দিন, ৪ নম্বর চান্দগাঁও ওয়ার্ডের নাছির উদ্দিন, ২১ নম্বর জামালখান ওয়ার্ডের শাহতাব আহমেদ, এরা সবাই যার যার পছন্দের কাউন্সিলর প্রার্থীর সাথে নগর বিএনপির কার্যালয় মাঠে আড্ডায় সময় পার করছেন।প্রার্থীদের কেউ কেউ সাক্ষাৎকার দিতে কার্যালয়ে প্রবেশ করেছেন। সাক্ষাৎকার শেষে দলবল নিয়ে এলাকায়ও চলে যাচ্ছেন।
প্রসঙ্গত, বিএনপির চট্টগ্রাম বিভাগীয় সাংগঠনিক সম্পাদক মাহবুবের রহমান শামীমের নেতৃত্বে নগর বিএনপির সভাপতি ডা. শাহাদাত হোসেন, সিনিয়র সহ-সভাপতি আবু সুফিয়ান, সহ-সভাপতি এমএ আজিজ, সাধারণ সম্পাদক আবুল হাশেম বক্কর, সিনিয়র যুগ্ম-সম্পাদক সাইফুল আলম, সাংগঠনিক সম্পাদক মঞ্জুরুল আলম মঞ্জুকে সদস্য রাখা হলেও নতুনভাবে যুক্ত হয়েছেন সহ-সভাপতি নাজিমুর রহমান, যুগ্ম সম্পাদক ইয়াছিন চৌধুরী লিটন, সাংগঠনিক সম্পাদক (২) কামরুল ইসলাম।
তবে ডা. শাহাদাত হোসেন ঢাকা এবং আবু সুফিয়ান দেশের বাহিরে থাকা সাক্ষাৎকার গ্রহণে উপস্থিত ছিলেন না।বিএনপির টিকিটে মেয়র পদে লড়তে নগর বিএনপির সভাপতি ডা. শাহাদাত হোসেন, সাধারণ সম্পদক আবুল হাশেম বক্কর, সহ-সভাপতি নিয়াজ মোহাম্মদ খান, সৈয়দ আজম উদ্দীন, সাবেক যুগ্ম সম্পাদক এরশাদ উল্লাহ, মহিলা বিষয়ক সম্পাদক ডা. লুসি খান দলীয় মনোনয়ন ফরম সংগ্রহ করেছিলেন।
সৈয়দ আজম উদ্দনী ছাড়া বাকী ৫জন মনোনয়ন পত্র কেন্দ্রীয় দপ্তরে জমা দিয়েছেন।বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক মাহবুবের রহমান শামীম বলেন, মেয়র পদে ৬ জন দলীয় মনোনয়নপত্র সংগ্রহ করলেও ৫ জন জমা দিয়েছেন। ২৪ ফেব্রুয়ারি স্থায়ী কমিটির বৈঠকে আলোচনা হবে। তারপর দলের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান জননেতা তারেক রহমানের কাছে প্রস্তাব পাঠানো হবে। তিনিই চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত দিবেন মেয়র পদে ধানের শীষ কার হাতে উঠছে।নগর বিএনপির সাধারণ সম্পাদক আবুল হাশেম বক্কর বলেন, কাউন্সিলর ও সংরক্ষিত মহিলা কাউন্সিল মিলে দুই শতাধিক নেতাকর্মী দলীয় মনোনয়নপত্র সংগ্রহ করেছেন। আমরা মনোনয়ন বোর্ড তাদের সাথে আলাপ আলোচনা করে একটি তালিকা দলের হাইকমান্ডের কাছে পাঠাবো। তাঁরাই চূড়ান্ত করবেন কাউন্সিলর পদে কারা লড়বেন।
ইতোমধ্যে, সরকারি দল বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের নির্বাচনী প্রতীক নৌকা উঠেছে নগর আওয়ামী লীগের যুগ্ম সম্পাদক মুক্তিযোদ্ধা রেজাউল করিম চৌধুরীর হাতে। তারা ৪১টি ওয়ার্ড ও ১৪টি সংরক্ষিত মহিলা ওয়ার্ডে তাদের প্রার্থী ঘোষণা করেছেন। মেয়র পদে লড়তে জাতীয় পার্টি থেকে মনোনয়ন পেয়েছেন নগর জাতীয় পার্টির সভাপতি সোলায়মান আলম শেঠ।
প্রসঙ্গত, আগামী ২৯ মার্চ (রোববার) চসিকের ভোট গ্রহণ অনুষ্ঠিত হবে। ৯টা থেকে বিকেল ৫টা পর্যন্ত ভোট গ্রহণ করা হবে।রোববার (১৬ ফেব্রুয়ারি) নির্বাচন ভবনে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে চসিক ভোটের তফসিল ঘোষণা করা হয়। তফসিল ঘোষণার আগেই শনিবার (১৫ ফেব্রুয়ারি) দলীয় প্রার্থী হিসেবে মহানগর আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক রেজাউল করিমকে মনোনয়ন দিয়েছে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ।
তফসিল অনুযায়ী প্রার্থী হিসেবে মনোনয়ন দাখিলের শেষ সময় ২৭ ফেব্রুয়ারি, মনোনয়নপত্র বাছাই ১ মার্চ, আপিল ২ থেকে ৪ মার্চ, প্রার্থিতা প্রত্যাহার ৮ মার্চ, প্রতীক বরাদ্দ হবে ৯ মার্চ। আর ভোটগ্রহণ হবে ২৯ মার্চ।

Share On