দুই বাসের মুখোমুখি সংঘর্ষে নিহত ৮

ঠাকুরগাঁও প্রতিনিধি

ঠাকুরগাঁওয়ে যাত্রীবাহী বাস ও নৈশ্য কোচের মুখোমুখি সংঘর্ষে আটজন নিহত হয়েছেন। এ ঘটনায় আহত হয়েছেন অন্তত ২৭ জন। আহতদের ঠাকুরগাঁও, দিনাজপুর ও রংপুর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে ।

শুক্রবার (২ আগস্ট) সকাল পৌনে ৮টার দিকে ঠাকুরগাঁও সদর উপজেলার কুমিল্লাহাড়ী বলাকা উদ্যান এলাকায় এ দুর্ঘটনা ঘটে। দুঘর্টনা কবলিত বাসটি দুটি রাস্তায় পড়ে থাকায় বেলা ১১টা পর্যন্ত ঠাকুরগাঁও-দিনাজপুর-রংপুর মহাসড়কে যোগাযোগ বন্ধ ছিল।

পুলিশ ও ফায়ার সার্ভিস সিভিল ডিফেন্স কর্মীরা রাস্তা থাকা নৈশ্য কোচ ও বাসটি সড়িয়ে নিলে যোগাযোগ স্বাভাবিক হয়। নিহতদের লাশ ময়নাতদন্তের জন্য ঠাকুরগাঁও আধুনিক সদর হাসপাতালের মর্গে নেওয়া হয়েছে।

ঠাকুরগাঁও জেলা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত পুলিশ সুপার আল আসাদ মো. মাহফুজুল ইসলাম জানান, ঠাকুরগাঁও থেকে ছেড়ে যাওয়া নিশাত পরিবহন যাত্রীবাহী বাসটি সদর উপজেলার কুমিল্লাহাড়ী নামক স্থানে পৌঁছালে বিপরীত দিক থেকে আসা নৈশকোচ ডিপজল পরিবহনের মুখোমুখি সংঘর্ষ হয়।

এতে ঘটনাস্থলেই পাঁচজন ও হাসপাতালে আরেকজনের মৃত্যু হয়। এ ছাড়া রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেওয়ার পথে আরও একজন মারা যান। তিনি হলেন আব্দুল মজিদ (৬১)। তার বাড়ি সদর উপজেলার আকচা গ্রামে ।

অন্য নিহতদের মধ্যে বালিয়াডাঙ্গী উপজেলার বেংরোল গ্রামের দুইজন ও সনগাঁও গ্রামের তিনজন এবং লাহিড়ী গ্রামের একজন। তিনি হলেন, বালিয়াডাঙ্গী শহীদ আকবর আলী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি কলেজের ছাত্র আব্দুর রউফ।

আরেক জনের বাড়ি সদর উপজেলার খোচাবাড়ি গ্রামে। তার নাম ক্ষিতিশ চন্দ্র রায় (৪৭)। তবে আহতদের অনেকের বাড়ি ঠাকুরগাঁও সদর ও বালিয়াডাঙ্গী এবং দুজনের বাড়ি দিনাজপুরের খানসামা উপজেলায়।

দ্য ওয়ার্ল্ডবিডি/ঢাকা/এফওয়াই

Share On