আ.লীগের দুই নেতাকে গুলি করে হত্যা

বান্দরবান ও সাতক্ষীরা প্রতিনিধি

বান্দরবান ও সাতক্ষীরায় আওয়ামী লীগের দুই নেতাকে গুলি করে হত্যা করা হয়েছে। সোমবার (২২ জুলাই) এ ঘটনা ঘটে। পৃথক এ ঘটনায় এখন পর্যন্ত কেউ গ্রেফতার হয়নি।

ঘটনার বিবরণে জানা যায়, বান্দরবান-রোয়াংছ‌ড়ি সড়‌কের শামুকছ‌ড়ি এলাকায় ইউনিয়ন আওয়ামী লী‌গের সভাপ‌তি মংমং থোয়াই মারমা‌কে (৫০) গু‌লি ক‌রে হত্যা ক‌রে‌ছে দুর্বৃত্তরা।

সোমবার (২২ জুলাই) দুপুর দেড়টার দি‌কে সদর উপ‌জেলার শামুকছ‌ড়িতে এ ঘটনা ঘ‌টে। থোয়াই মারমা রোয়াংছ‌ড়ির তারাছা ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপ‌তি।

পু‌লিশ জানায়, দুপু‌রে রোয়াংছ‌ড়ি থে‌কে বান্দরবান সদ‌রে আসার প‌থে সদ‌রের শামকছ‌ড়ি এলাকায় দুর্বৃত্তরা থোয়াই মারমাকে পাঁচটি গু‌লি ক‌রে। এতে ঘটনাস্থ‌লেই তার মৃত্যু হয়।

বান্দরবান সদর হাসপাতা‌লের ডাক্তার চিংম্রাসা ব‌লেন, হাসপাতা‌লে আনার আগেই তার মৃত্যু হ‌য়ে‌ছে।

বান্দরবান সদর থানার ওসি মো. শ‌হিদুল ইসলাম ঘটনার সত্যতা স্বীকার করলেও বিস্তারিত জানাতে পারেননি।

অপরদিকে, সাতক্ষীরা সদর উপজেলার আগরদাঁড়ি ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সহ সভাপতি নজরুল ইসলামকে (৫৫) গুলি করে হত্যা করেছে দুর্বৃত্তরা।

সোমবার (২২ জুলাই) বেলা সাড়ে ১১টার দিকে সাতক্ষীরা শহরের কাশেমপুর হাজামপাড়া নামক স্থান থেকে তার লাশ উদ্ধার করে পুলিশ।

নিহত নজরুল ইসলাম আগরদাঁড়ি ইউনিয়নের কুঁচপুকুর গ্রামে মৃত নেছার উদ্দিনের ছেলে।

ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি হাবিবুর রহমান জানান, নজরুল কদমতলা থেকে মোটরসাইকেল যোগে বাড়ি ফিরছিলেন। পথে পিছন থেকে অপর একটি মোটরসাইকেল আরোহী দুর্বৃত্তরা তাকে গুলি করে পালিয়ে যায়।

সাতক্ষীরার ভারপ্রাপ্ত পুলিশ সুপার ইলতুৎমিশ জানান, লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য সদর হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে।

হত্যাকারীদের ধরতে পুলিশ মাঠে নেমেছে জানালেও হত্যার কারণ সম্পর্কে কিছুই জানাতে পারেননি পুলিশ সুপার।

নিহত নজরুলের ছেলে পলাশ হোসেন জানান, স্থানীয় সাবেক ইউপি সদস্য তৌহিদুলের সঙ্গে তার বাবার দীর্ঘদিন ধরে বিরোধ চলছিলো। এরই জেরে তার বাবাকে হত্যা করতে পারে।

দ্য ওয়ার্ল্ডবিডি/ঢাকা/এফওয়াই

Share On