ক্রীড়াঙ্গন

হতাশা কাটিয়ে নতুন উদ্যমে যাত্রা

ক্রীড়া প্রতিবেদক

বৃষ্টির বাগড়ায় ম্যাচটি পরিত্যক্ত হওয়ায় একটি মূল্যবান পয়েন্ট হয়েছে হাতছাড়া। ভক্ত- সমর্থকদের মনে তাই রাজ্যের আক্ষেপ-অনুশোচনা আর হতাশা। কিন্তু আসরটি বিশ্বকাপ। কোনো রিজার্ভ ডে নেই। আর এমনিতেই ৭ সপ্তাহর আয়োজন। তারপরও প্রতি খেলার মাঝখানে রিজার্ভ-ডে রাখলে পুরো বিশ্বকাপ আয়োজনে সময় লাগত দ্বিগুণ।

ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে বাংলাদেশের খেলা টনটনে। এখন মিশন তাই টনটন। আর সে লক্ষ্যেই বুধবার (১২ জুন) স্থানীয় সময় দুপুরে টনটনের উদ্দেশ্যে ব্রিস্টল ছাড়বে টিম বাংলাদেশ।

টাইগারদের মিডিয়া ম্যানেজার রাবিদ ইমাম জানিয়েছেন, বুধবার (১২ জুন) বেলা ১টায় ব্রিস্টল থেকে টনটনের পথে বাসযোগে যাত্রা করবে দল। এক থেকে সোয়া ঘণ্টার বাস ভ্রমণ শেষে দুপুর আড়াইটার আগেই হয়ত টনটন পৌঁছে যাবে জাতীয় দলের বহর।

রাউন্ড রবিন লিগ, সেমিফাইনাল ও ফাইনাল মিলে ৪৫টি রিজার্ভ ডে রাখলে খেলা চালাতে আরও ছয় সপ্তাহর বেশি সময় লাগত। অর্থাৎ, সব মিলিয়ে প্রায় তিন মাসের মতো সময় লেগে যেত টুর্নামেন্ট শেষ হতে। বাস্তবে যা সম্ভব নয়। তাই বৃষ্টি বা প্রাকৃতিক দুর্যোগে ম্যাচ পরিত্যক্ত হওয়াটা স্বাভাবিক মেনে নিয়েই চলতে হবে।

আর বৃষ্টি তো কাউকে বলে-কয়ে কোনো নির্দিষ্ট দলের বিপক্ষে নামে না। যুক্তরাজ্যের আবহাওয়াই এমন। মেঘের মতো ক্ষণে ক্ষণে রূপ বদলায়। এই সোনা ঝরা রোদ তো পরক্ষণে ঝিরঝিরে বৃষ্টি। এ কারণে এরই মধ্যে কয়েকটি ম্যাচ পরিত্যক্তও হয়েছে। এটাকে নিয়তি মেনেই দলগুলো খেলছে। টিম বাংলাদেশের জন্যও অবস্থা ভিন্ন নয়।

সংবাদ সম্মেলনে কোচ স্টিভ রোডস জনাকীর্ণ সংবাদ সন্মেলনে বলেছেন, ‘প্রকৃতির ওপর কারো হাত নেই। কাজেই তা মেনে নিয়েই খেলতে হবে। সামনে আগানোর চিন্তা করতে হবে।’ তিনি আরও বলেন, ‘যা আমাদের হাতে নেই, তা নিয়ে বেশি ভেবেও লাভ নেই। আমরা যা করতে পারি, সেটাই লক্ষ্য ও পরিকল্পনা হওয়া উচিৎ।

এখন আমাদের লক্ষ্য একটাই- পরের ম্যাচগুলো যতটা সম্ভব ভালো খেলা। এই ভালো খেলার চেষ্টা করাটা আমাদের হাতে। আমরা সামর্থ্যের সবটুকু ঢেলে দিয়ে চেষ্টা করতে পারি। তাতে পারফরম্যান্স উজ্জ্বল হবে। ফলও ভালো হবার সম্ভাবনা থাকবে। কিন্তু বৈরী আর প্রতিকূল আবহাওয়াকে আমরা শত চেষ্টায়ও অনুকূলে আনতে পারবোনা।’

তাই যত দ্রুত সম্ভব এক পয়েন্ট না পাবার আক্ষেপ-অনুশোচনা মুক্ত হয়ে আগামী ১৭ জুন ওয়েস্ট ইন্ডিজের সাথে ম্যাচের জন্য প্রস্তুত হবার তাগিদ দিয়েছেন বাংলাদেশ কোচ। এমনকি ওয়েস্ট ইন্ডিজের সাথে সম্ভাব্য লক্ষ্য – পরিকল্পনাও এঁটে ফেলেছেন বাংলাদেশ দ্রোনাচার্য্য।

ভয়ঙ্কর ও ফর্মের তুঙ্গে থাকা ক্যারিবীয় অলরাউন্ডার আন্দ্রে রাসেলই হতে পারেন, এ পরিকল্পনার পথে সবচেয়ে বড় বাঁধা। এই অনুভব ও উপলব্ধি থেকে আন্দ্রে রাসেলকে আটকে রাখার পরিকল্পনাও বাতলে রেখেছেন স্টিভ রোডস।

এদিকে মঙ্গলবার খেলা না হলেও ক্রিকেটারদের ওপর মানসিক ও শারীরিক ধকল গেছে। আর আজ যেহেতু যাত্রায় কাটবে এক বেলা। আবার এক শহর থেকে অন্য শহরে যাবার প্রস্তুতিও আছ। আজ তাই সারাদিন বিশ্রাম। এমনকি আগামীকাল ১৩ জুনও পুরো দলের ছুটি। অর্থাৎ, আজ ও কাল ছুটির আমেজে সময় কাটবে ক্রিকেটারদের।

দুদিন বিরতি দিয়ে আগামী পরশু ১৪ জুন টনটনের সামারসেট কাউন্টি ক্রিকেট মাঠের কমিউনিটি ক্লিনিকে অনুশীলন করবে টাইগাররা। অবশ্য ক্রিকেটাররা কাল রাত থেকেই শ্রীলঙ্কার সাথে ম্যাচ না হবার আক্ষেপ-অনুশোচনা কাটানোর চেষ্টা করছেন।

দ্য ওয়ার্ল্ডবিডি/ঢাকা/কেএ/জেডসি

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button
Close